জন্ম নিবন্ধন সংশোধন নিয়ম | জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফি 2022

আপনার জন্ম নিবন্ধনে ভুল রয়েছে? কোন ব্যাপার না। জন্ম নিবন্ধনে কোন ভুল থাকলে অনলাইনেই তা সংশোধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ২০২২ সালের আপডেট সব তথ্য, কিভাবে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করা যায়, কিভাবে আবেদন করবেন বিস্তারিত নিয়ে আজকের আলোচনা। আশা করি আপনার উপকারে আসবে। জন্ম নিবন্ধন অনলাইন চেক

  •  সংশোধন করতে কত টাকা লাগে

বাংলাদেশ সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী, নিবন্ধন তথ্য সংশোধন, পুনঃমুদ্রণের জন্য ফি নির্ধারণ করেছে। সংশোধন করতে কত টাকা লাগে তা বিস্তারিত নিচে দেয়া হল।

নিবন্ধন সংশোধন ফি

সংশোধনের ধরণ দেশে বিদেশে
তথ্য সংশোধনের জন্য ফি ১০০ টাকা ২ ডলার
জন্ম তারিখ ব্যতীত নাম, পিতার নাম, মাতার নাম, ঠিকানা ইত্যাদি অন্যান্য তথ্য সংশোধনের জন্য ৫০ টাকা ১ ডলার
বাংলা ইংরেজি উভয় ভাষায় মূল সনদ বা তথ্য সংশোধনের পর সনদের কপি সরবরাহ বিনা ফিসে বিনা ফিসে
বাংলা ইংরেজি উভয় ভাষায় সনদের নকল সরবরাহ ৫০ টাকা ১ ডলার

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফি ২০২২

জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার নিয়ম

জন্ম নিবন্ধনে জন্ম তারিখ সংশোধন বা বয়স সংশোধনের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। উপযুক্ত প্রমাণ সাবমিট করলেই ১৫ কার্যদিবসের মধ্যেই আবেদন অনুমোদন হয়ে যায়।

জন্ম নিবন্ধনে জন্ম তারিখ সংশোধনের জন্য, টিকার কার্ড, জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স বা টিআইএন সার্টিফিকেট প্রমাণপত্র হিসেবে সাবমিট করার প্রয়োজন হয়।

জন্ম নিবন্ধনে ইংরেজি তথ্য সংযোজন

পূর্বের জন্ম নিবন্ধনগুলোতে আমাদের ইংরেজি তথ্য অন্তর্ভুক্ত ছিলনা। পরবর্তীতে অনলাইন ডাটাবেইজ করার পর ইংরেজি তথ্য সংযোজন করার সুযোগ রাখা হয়।

আপনারা যারা এখনো জন্ম নিবন্ধনে ইংরেজি তথ্য সংযোজন করেননি, অনলাইনে আবেদন করে নিজেই ইংরেজি তথ্য যোগ করে নিতে পারেন।

যে কোন ধরণের তথ্যের পরিবর্তন, সংযোজন ও বিয়োজনকে সংশোধন হিসেবে গণ করা হয়, তাই অনলাইনে একটি তথ্য সংশোধনের আবেদন করে এ কাজটি করে নিতে পারেন।

জন্ম নিবন্ধন বাংলা থেকে ইংরেজি করার নিয়ম

জন্ম নিবন্ধনে পিতা/মাতার নাম সংশোধন

আপনার জন্ম নিবন্ধনে পিতা/মাতার নাম সংশোধন করা পরিস্থিতি ভেদে সহজ বা কঠিন হতে পারে আপনার জন্য।

পিতা/মাতার নাম সংশোধনের জন্য ভিন্ন ভিন্ন পরিস্থিতি অনুযায়ী ভিন্ন আবেদন পদ্ধতি রয়েছে। আসুন জানি এগুলো সম্পর্কে।

পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন রয়েছে

১ম ধাপঃ যদি আপনার বাবা/মায়ের অনলাইন বা ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন থাকে, তখন প্রথমে দেখতে হবে তাঁদের জন্ম নিবন্ধন সঠিক আছে কিনা। যদি সঠিক না থাকে, আগে তাঁদের জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে হবে। সঠিক থাকলে, কিছু করতে হবেনা ২ ধাপ অনুসরণ করুন।

২য় ধাপঃ এরপর, আপনার জন্ম নিবন্ধন করার সময় যদি পিতা/মাতার নিবন্ধন নম্বর দিয়ে থাকেন, স্বয়ংক্রীয়ভাবে আপনার জন্ম নিবন্ধনে সংশোধিত নাম দেখাবে। আপনি জন্ম নিবন্ধনটি পুনমুদ্রণ করার আবেদন করে পুনঃমুদ্রণ করিয়ে নিলেই হবে।

আর যদি জন্ম নিবন্ধন করার সময় আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না দিয়ে থাকেন, এক্ষেত্রে আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বরের সাথে পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর ম্যাপ করতে হবে। ম্যাপ করার পর আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ পুনর্মুদ্রণ করলে, সেখানে পিতা/মাতার সংশোধিত নাম দেখা যাবে।

পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নেই

পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন না থাকলে ২ ধরণের আবেদন হতে পারে। তাঁরা জীবিত থাকলে এক ধরণের আবেদন আবার তাঁরা মারা গেলে ভিন্ন আবেদন।

১। পিতা/মাতা জীবিত হলে

১ম ধাপঃ যদি পিতা/মাতা জীবিত আছেন, তাঁদের  জন্ম নিবন্ধন নম্বর করা না থাকে এবং আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর পর হয়, অবশ্যই আগে তাঁদের জন্ম নিবন্ধন করতে হবে।

২য় ধাপঃ এরপর, আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বরের সাথে পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর ম্যাপ করতে হবে। ম্যাপ করার পর আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ পুনর্মুদ্রণ করলে, সেখানে পিতা/মাতার সংশোধিত নাম দেখা যাবে।

উল্লেখ্য, আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর পূর্বে হয়ে থাকলে বাবা/মার জন্ম নিবন্ধন কপি বাধ্যতামূলক নয়। এক্ষেত্রে অনলাইনে সংশোধনের আবেদন করে আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সাবমিট করলেই হবে।

২। পিতা/মাতা মৃত হলে

যদি পিতা/মাতা মৃত, তাঁদের  জন্ম নিবন্ধন নম্বর করা না থাকে এবং আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর পর হয়, তখন সরাসরি আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন করে পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার পিতা/মাতার মৃত্যুর প্রমাণপত্র দাখিল করতে হবে।

তবে, আপাতত এই ধরণের আবেদনসমূহ সরাসরি অনলাইনে করা যাচ্ছে না। তাই এই সমস্যার জন্য সরাসরি নিবন্ধকের কার্যালয়ে যোগাযোগ করতে পারেন।

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার প্রক্রিয়া

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন
জন্ম নিবন্ধন সংশোধন

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন করতে হলে আপনার জন্ম নিবন্ধনটি অনলাইনে থাকতে হবে। অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের আবেদন করতে, সংশোধিত তথ্য যুক্ত করুন এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আপলোড করে আবেদন সাবমিট করুন। সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ আপনার আবেদন যাচাই বাছাইয়ের পর আপনাকে শুনানীর জন্য ডাকবে। তখন আপনি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখানোর পর আবেদন অনুমোদন করা হলেই জন্ম নিবন্ধন সংশোধন হবে।

আবেদন করার পূর্বে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করে নিন যে এটি অনলাইন কিনা। জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধনের একটি আবেদন প্রক্রিয়াটি ধাপে ধাপে দেখানো হলো।

ধাপ ১ঃ জন্ম নিবন্ধন ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন

প্রথমে https://bdris.gov.bd/ এই ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে হবে। এখানে নিচের মত একটি পেইজ আসবে। মেন্যু থেকে জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন মেন্যুতে ক্লিক করুন।

 

4 Comments

    • অনলাইনে আবেদন করে পিরেন্ট কপি নিয়ে পরিষোদ থেকে ডিজিটাল কপি পাবেন…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *